Home » মিডিয়া » খানদের মাথায় হাত?
bbbbbbbbbb

খানদের মাথায় হাত?

কেউ বলিউড বাদশাহ, কেউবা ভাইজান। তাদের দাপটে বলিউডে ঢোকে এমন সাধ্য কার? প্রযোজকদের হাতে খানেরা আছেন, তো চোখ বন্ধ করে সফল ব্যবসা। কোটি কোটি রুপি ঘরে তোলায় খানেরা তাঁদের বাজির ঘোড়া।

বলিউডে খানদের এমনই দৌরাত্ম্য। এই রাজ্যে কিনা হানা দিল দক্ষিণী ছবি বাহুবলী! অমনি সব তছনছ করে ছবিটির ব্যবসার পারদ উঠে গেল সবার ওপরে। খানদের ছবি ছেড়ে বাহুবলীতে মেতে উঠল বলিউড-ভক্তরা। খানদের চোখ তো ছানাবড়া।

এ অবস্থায় কথা ছিল বাহুবলীকে প্রতিহত করতে খান সাহেবরা কাটাপ্পার ভূমিকা নেবেন। টপকে যাবেন বাহুবলীর ব্যবসা। কিন্তু খানদের মাথায় হাত। টপকে যাওয়া তো দূরের কথা, উল্টো পরিবেশকদের জন্য টাকা গুনতে হচ্ছে। সালমান খান সুলতান ছবি দিয়ে সুলতানি কায়দায় জ্বলে উঠলেও টিউবলাইট ছবি দিয়ে পড়ে গেলেন অন্ধকারে। সাল্লু ভাইয়ের ছবির ইতিহাস বলে, প্রথম দিনের আয়ের হিসাবে এই ছবিটিই আছে সবচেয়ে নিচের দিকে। মুক্তির প্রথম দিনে ভাইজানের এক থা টাইগার (২০১২) আয় করেছিল ৩২ কোটি ৯৩ লাখ, কিক (২০১৪) ২৬ কোটি ২৪ লাখ, বজরঙ্গি ভাইজান (২০১৫) ২৭ কোটি ২৫ লাখ, সুলতান(২০১৬) ৩৬ কোটি ৫৪ লাখ রুপি। আর টিউবলাইট? প্রথম দিনে আয় করেছে মাত্র ২১ কোটি ১৫ লাখ রুপি। এরপর পথচলা টিম টিম করেই। অন্যদিকে বাহুবলী ২ ব্যবসাটা ঝালিয়ে নিল আরেকটু। ছবিটি কামিয়ে নিল হাজার কোটি রুপি।

পরিবেশকদের অবস্থা তথৈবচ। হাজির ভাইজানের পরিবারের দ্বারে। ক্ষতিপূরণ চাই। পরিবেশকদের সঙ্গে বসলেন সালমান খান ও বাবা সেলিম খান। অনেক মুলামুলির পর ঠিক হলো, সালমান তাঁদের ৫০ থেকে ৫৫ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ দেবেন। অবশ্য পরে নতুন সিদ্ধান্ত হয়, মোট ক্ষতির অর্ধেক অর্থ ফেরত দিতে হবে সাল্লু ভাইকে—গুনে গুনে ৩২ কোটি ৫০ লাখ রুপি।

টিউবলাইট ছবির দৃশ্যএদিকে আরেক খান নাকি রাস্তার বাইরে হাঁটছেন। দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে ও কুছকুছ হোতা হায় ছবির নায়ক শাহরুখ খান লাগাতার উপহার দিয়ে যাচ্ছেন ফ্লপ ছবি। দিলওয়ালেফ্যানডিয়ার জিন্দেগি ও রইস—চারখানি ছবিই কোনো আশা জাগাতে পারেনি। নতুন ছবি জব হ্যারি মেট সেজল-এর জন্য তো গচ্চাই দিতে হতে পারে ৫০ কোটি রুপি। প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। এ ছবিটিরও একজন পরিবেশক শ্রেয়াস হিরাওয়াত—যিনি টিউবলাইট ছবিরও পরিবেশক, বেচারি দুই ছবি মিলিয়ে ৬০ কোটি রুপির ক্ষতিতে দিশেহারা। প্রশ্ন উঠছে, শাহরুখকেও কি হাঁটতে হবে সালমানের পথে?

আমির খানঅন্যদিকে আপাতত খোশমেজাজেই আছেন মি. পারফেকশনিস্ট আমির খান। বলিউডে তাঁর ইমেজটি এখনো ধরে রেখেছেন ঠিকঠাক। ব্যবসাটাও চলছে সমানতালে। দঙ্গল দিয়ে তো চীনে রীতিমতো ঝড় তুলেছিলেন। সামনে আসছে অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে থাগ অব হিন্দোস্তান। ভক্তদের আশা, এবারও ফেরাবেন না তিনি। তবে পিছলে পড়তে কতক্ষণ? মনে আছে, তালাশ ছবিটি দিয়ে হতাশ করেছিলেন প্রযোজকদের?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফেরার আগেই ঝড় তুললেন সঞ্জয়

Sharing is caring!FacebookTwitterGoogle+Pinterest ‘ভূমি’-র পোস্টার গল্প বাবা আর মেয়ের। মেয়েকে হাজার প্রতিকূলতা থেকে বাঁচানোর প্রয়াস ...