Home » মিডিয়া » মুম্বাইয়ে ল্যাকমে ফ্যাশন উইক শুরু হলো জমকালো ফ্যাশন উৎসব

মুম্বাইয়ে ল্যাকমে ফ্যাশন উইক শুরু হলো জমকালো ফ্যাশন উৎসব

মুম্বাইয়ে গতকাল ল্যাকমে ফ্যাশন উইকে ডিজাইনার রিতু কুমারের পোশাকে হাঁটেন এক মডেল l ছবি: সংগৃহীতপোশাকের কাট-ছাঁট আর রং-নকশায় বৈচিত্র্য এনেই হওয়া যায় তারকা৷ ফ্যাশনের বড় কোনো উৎসবে না গেলে এটা বোঝা যায় না৷ ফ্যাশন ডিজাইনাররাই এমন উৎসবের তারকা৷ তাই তো ল্যাকমে ফ্যাশন উইকের প্রথম দিনে সেলফি শিকারিদের হাত থেকে ডিজাইনার মনীশ মালহোত্রাকে রীতিমতো পালিয়ে বাঁচতে হলো। তিনি এসেছিলেন গত বুধবার থেকে শুরু হওয়া ল্যাকমে ফ্যাশন উইকের প্রথম আয়োজন ‘জেন নেক্সট’ দেখতে৷

‘ল্যাকমে ফ্যাশন উইক’ ১৮ বছর ধরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ভারতের মুম্বাইয়ে৷ গতকাল বুধবার শুরু হয় এ বছরের দ্বিতীয় ল্যাকমে ফ্যাশন উইক। আগামী শীত মৌসুম আর উৎসবের সময়ে পোশাকের ধারা কেমন হবে, সে ধারণা পাওয়া যাবে এই আয়োজনে।

মুম্বাইয়ের পাঁচতারা হোটেল সেন্ট রেজিস পাঁচ দিনের জন্য হয়ে উঠেছে ফ্যাশনপ্রেমীদের সমাবেশস্থল৷ এ বছর তরুণদের ফ্যাশন দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে শুরু হলো ‘ল্যাকমে ফ্যাশন উইক উইন্টার/ফেস্টিভ ২০১৭’৷ উৎসব চলবে ২০ আগস্ট পর্যন্ত৷

কাল দুপুর ১২টায় নবীন ফ্যাশন ডিজাইনারদের পোশাক প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে শুরু হয় প্রথম দিনের আয়োজন৷ আয়োজনের নাম ছিল ‘আইএনএফডি প্রেজেন্টস জেন নেক্সট’৷ ১০ জন তরুণ ডিজাইনার এ আয়োজনে নিজেদের নকশা করা পোশাক দেখান। প্রায় ৪০০ সম্ভাবনাময় ডিজাইনারের মধ্য থেকে বাছাই করে এই ১০ জনকে তৈরি করা হয়েছে এ আয়োজনের জন্য৷ আর তাঁদের সাহস জোগাতে ভারতের খ্যাতনামা ডিজাইনার মনীশ মালহোত্রা দর্শক সারিতে উপস্থিত ছিলেন৷ অনুষ্ঠান শেষে মনীশ মালহোত্রা প্রথম আলোকে বললেন, ‘তাঁদের কাজ দেখে বোঝা যায় যে এই উপমহাদেশের ফ্যাশন শিল্পের এগিয়ে যাওয়াকে কেউ দমাতে পারবে না৷ আজ খুবই আশাবাদী আমি৷’

বেলা দেড়টায় উৎসবের মূল মঞ্চে ছিল সোনাল ভার্মা ও শ্বেতা কাপুরের প্রদর্শনী৷ এর মধ্যে শ্বেতার শো-স্টপার হয়ে র‍্যাম্পে হাঁটেন অভিনেত্রী সায়নী গুপ্তা৷ ফ্যান ছবিতে শাহরুখ খানের সহকারীর চরিত্রে অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছিলেন সায়নী৷ উৎসবের প্রথম শো-স্টপার হিসেবে চকমকে পোশাকে শ্যামবর্ণের সায়নী তাঁর স্বর্ণআভা বেশ ভালোভাবেই ছড়িয়ে যান৷

উৎসবের প্রথম বড় আয়োজনটি শুরু হয় বেলা তিনটায়৷ গুণী ডিজাইনার রিতু কুমার এদিন ‘সুইট সারেন্ডার’ নামে তাঁর শীত ও উৎসব সংগ্রহ মঞ্চে তোলেন৷ বয়স তাঁর ৭২ বছর হলে কী হবে, পোশাকের নকশার দিক থেকে তিনি চিরসবুজ৷ তাঁর পোশাকে জৌলুশ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে ইউনিলিভারের ফ্যাশন ব্র্যান্ড ল্যাকমের মেকআপ বিশেষজ্ঞ ডোনাল্ড শিমরক৷ আর সব মিলিয়ে রিতু কুমারের পুরো সংগ্রহে পূর্ণতার ছোঁয়া দিয়েছেন শো-স্টপার বলিউডের এই সময়ের আলোচিত অভিনেত্রী দিশা পাটানি৷ রিতুর নকশা করা ফুলেল প্রিন্টের কাঁধখোলা এক গাউনে দিশা হাঁটেন মঞ্চে৷

রিতু কুমারের সঙ্গে কথা হয় তাঁর ফ্যাশন শোর পরপরই৷ তিনি বলেন, ‘খুব দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে এ তল্লাটের ফ্যাশন শিল্প। খুব বেশি দিন বাকি নেই “বিগ ফোর” ধারণাটি বদলে “বিগ ফাইভ” হয়ে যাওয়ার৷’ বিগ ফোর হলো বিশ্বের সবচেয়ে বড় চারটি ফ্যাশন উৎসবের সংক্ষিপ্ত নাম—প্যারিস, মিলান, নিউইয়র্ক আর লন্ডন ফ্যাশন উইক৷ রিতু কুমারের ভাষ্যমতে এই চারটির সঙ্গে খুব দ্রুতই যোগ হতে পারে ল্যাকমে ফ্যাশন উইকের নামও৷

প্রথম দিনের আয়োজনের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ডিজাইনার মাসাবা গুপ্তের ফ্যাশন শো৷ মাসাবা হলেন ভারতীয় অভিনেত্রী নীনা গুপ্তের মেয়ে৷ তাঁর বাবা খ্যাতিমান ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডস৷ তাই নিজের খ্যাতিতেই দ্যুতিময় মাসাবার কোনো শো-স্টপারের প্রয়োজন হয় না৷ তিনি একাই যথেষ্ট৷

রাত সাড়ে নয়টায় সঞ্জয় গার্গের জমকালো শো দিয়ে শেষ হয় প্রথম দিনের ফ্যাশন আয়োজন৷ এদিন সঞ্জয়ের শো-স্টপার ছিলেন আন্তর্জাতিক মডেল উজ্জ্বলা রাউত৷ তবে জমকালো এই আয়োজন সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল না৷ ফ্যাশনবোদ্ধা, নামী ডিজাইনার আর সাংবাদিকেরাই উপস্থিত থাকতে পেরেছেন এই আয়োজনে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফেরার আগেই ঝড় তুললেন সঞ্জয়

Sharing is caring!FacebookTwitterGoogle+Pinterest ‘ভূমি’-র পোস্টার গল্প বাবা আর মেয়ের। মেয়েকে হাজার প্রতিকূলতা থেকে বাঁচানোর প্রয়াস ...